কয়েক বছর ধ’রে শতাধিক ছা’ত্রীকে ধ’র্ষ’ন’ ক’রেছে এক যুবক!

কয়েক বছর ধ’রে শতাধিক বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া যুবতীকে যৌ’ন হয়রানি ও অবমাননার দায়ে মিশরে ২২ বছর বয়সী এক যুবকের বি’রুদ্ধে অ’ভিযোগ উঠেছে।

অ’ভিযোগ ক’রেছেন নির্যাতিত ছাত্রীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই যুবকের বি’রুদ্ধে এমন অ’ভিযোগে সয়লাব। ফলে বাধ্য হয়ে মিশর ক’র্তৃপক্ষ এ বিষয়ে তদ’ন্ত করার নির্দে’শ দিয়েছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আরব নিউজ।

কায়রোতে অবস্থিত আমেরিকান ইউনিভার্সিটিতে (এইউসি) শতাধিক নারীকে ওই তরুণ যৌ’ন হয়রানি করার অ’ভিযোগ রয়েছে। জা’না গেছে, ওই তরুণ বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক শিক্ষার্থী। নানাভাবে তিনি নারীদের স’ঙ্গে প্রতারণা ক’রতেন।

এইউসি ক’র্তৃপক্ষ বলছে, ওই তরুণ ২০১৮ সালে বিশ্ববিদ্যালয় ছে’ড়ে চলে গেছেন। তারপর নানা সময়ে নারী শিক্ষার্থীদের যৌ’ন হয়রানি ক’রতে থাকেন তিনি।

এক নারী শিক্ষার্থীর অ’ভিযোগ, আমাদের ১৩ থেকে ১৪ বছর বয়সে ওই তরুণ আমাকে এবং আমা’র বোনকে যৌ’ন নিপীড়ন করেছে। এ ব্যাপারে মুখ খুললে আপ’ত্তিকর ছবি প্র’কাশ করার হু’মকি দিয়েছিলেন ওই তরুণ।

আরেক নারীর অ’ভিযোগ, ওই তরুণ আমাকে বলেছিল, আমি যদি তার ব্যাপারে মুখ খুলি, তাহলে সে আমা’র পরিবারের কাছে বলবে যে, আমি তার স’ঙ্গে রাত কা’টিয়েছি। এমনকি আমা’র কাছ থেকে দ’ফায় দ’ফায় সে টাকা হাতিয়েছে সব ফাঁ’স করে দেওয়ার ভ’য় দেখিয়ে।

আরেক নারী শিক্ষার্থীর অ’ভিযোগ, আমি তখন বিদ্যালয়ের ছাত্রী। ওই সময় আমা’র স’ঙ্গে ঘুরতে গিয়ে যৌ’ন হয়রানি করেছে সে। এ ব্যাপারে তরুণের বাবার সহযোগিতা রয়েছে বলেও অ’ভিযোগ ক’রেছেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, আমি যখন এইউসি’তে ভর্তি হই, তখন আবারো তার খপ্পরে প’ড়ে যাই। এমনকি সে আমা’র স’ঙ্গে পরিবারের সদস্যদের মতো জো’র-জবরদস্তি করতো। আর নানা ঘ’টনার ছবি তুলে রাখতো। পরে সেগুলো ব্যবহার করে নিজে’র ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করতো।